6 প্যাক তৈরির উপায়

[img id=3382] আমাদের সবার সিক্স প্যাক আছে। কী বিশ্বাস হচ্ছে না? সমস্যা হলো বেশীরভাগ মানুষের ক্ষেত্রে এই সিক্স প্যাকের উপর একটি পুরু চর্বির আস্তরন রয়েছে।কোন ব্যাক্তির সিক্স প্যাক গঠন করতে ৫টি বিষয় খেয়াল রাখতে হয়ঃ
১। Body Fat Percentage:

সিক্স প্যাক দৃশ্যমান হবে কিনা তা নির্ভর করে একজন মানুষের ‘Body Fat Percentage’ এর উপর। ব্যাক্তিভেদে মোটামোটি Body Fat Percentage ১৫% এর নীচে থাকলে Abdominal Muscle দৃশ্যমান হয়।

২। সকালে দৌড়ঝাঁপঃ

[img id=3381]

আমরা খাদ্য থেকে যে ক্যালরি পাই রাতে ঘুমের মাঝে তার বেশিরভাগ পুড়ে যায়। তাই সকালে খালি পেটে ব্যায়াম করলে আমাদের দেহে যে অতিরিক্ত ক্যালরি চর্বি আকারে জমা থাকে, সেখান থেকে শক্তি সঞ্চারিত হয়। তাই সকালে ঘুম থেকে উঠেই ৩০ মিনিট কারডিও যেমন, দৌড়/ সাইক্লিং/ দড়ি লাফের ব্যায়াম, ইত্যাদি করলে বাড়তি চর্বি খুব তাড়াতাড়ি ঝরে যায়। দিনের অন্যান্য যে কোন সময়ের তুলনায় সকাল হলো কারডিও করার সবচেয়ে উপযুক্ত সময়।

৩। না খেয়ে থাকা যাবে নাঃ
[img id=3380] অনেকেই মনে করে মুটিয়ে গেলে কম খেতে হয়। তখন তারা না খেয়ে থাকে। সেক্ষেত্রে দেহে আরো চর্বি জমতে থাকে, যাতে দেহ যখন খাদ্য থেকে বঞ্চিত থাকে, তখন চর্বি পুড়িয়ে প্রয়োজনীয় শক্তি সঞ্চারণ করতে পারে!

৪। আমিষ এবং শর্করার অনুপাতঃ

[img id=3379]

কথায় আছে, সিক্স প্যাক জিমে না, রান্নাঘরে তৈরি হয়। একজন সুস্থ স্বাভাবিক নারীর দিনে ৪৬ গ্রাম এবং পুরুষের ৫৬ গ্রাম আমিষ খাবার খাওয়া উচিত। কিছু খাবারে আমিষের পরিমাণ উল্লেখ করা হলো-

[sc name=”myAdsense”]

এবং একটি আদর্শ খাবার প্লেটে আমিষ, শর্করা এবং শাক-সবজি কি অনুপাতে থাকা উচিত তা নীচের ছবি থেকে ধারণা করা যায়-98

আমাদের প্রচলিত খাদ্যাভ্যাসে শর্করার পরিমাণ আমিষ এবং শাকসবজির তুলনায় অনেক বেশি থাকে, যা পরিহার করা উচিত। সিক্স প্যাক তৈরির জন্য মাছ, মুরগির মাংস, দুধ, ডিম, পিনাট বাটার এবং প্রচুর পরিমানে ফল ও শাকসবজি খেতে হবে। এবং বাদাম, মাছের তেল ইত্যাদি খাবার থেকে প্রয়োজনীয় স্নেহ জাতীয় খাদ্যের চাহিদা মেটাতে হবে।

কোমল পানীয়, প্রক্রিয়াজাত খাদ্য, অতিরিক্ত ভাজা-পোড়া খাবার একেবারেই খাওয়া যাবে না।

[img id=3378]

৫। সম্পূর্ণ দেহের ব্যায়াম ও পরিপূর্ণ ঘুমঃ

সিক্স প্যাক দৃশ্যমান করতে সম্পূর্ণ দেহের ব্যায়াম করতে হয়। এজন্য জিমে যাওয়া জরুরি। জিমে গিয়ে প্রশিক্ষক এর নির্দেশনা অনুযায়ী ব্যায়াম করা উচিৎ। নাহলে হিতে বিপরীত হতে পারে। এবং রাতে কমপক্ষে ৮ ঘন্টা ঘুমাতে হবে।

এই ৫টি বিষয় মেনে চললে আপনিও হতে পারেন একজন আদর্শ দেহের অধিকারী। তবে দেরি কেন? বদলে ফেলুন আপনার লাইফস্টাইল, হয়ে উঠুন সুস্বাস্থ্যের অধিকারী।

নিচে কিছু ব্যায়াম দেখানো হল:
[img id=3386] [sc name=”myAdsense”][img id=3385] [img id=3384] [img id=3383]

Leave a Comment